top of page
  • Writer's pictureMostafizur Rahman

বিলেতে বাড়ি কেনাবেচা: হেল্প টু বাই-ইকুইটি লোন স্কিমের আবেদনের সময়সীমা বাড়ল (পর্ব-২৮)

রেসিডেন্সিয়াল প্রপার্টি কেনার জন্য ব্রিটিশ সরকারের যতগুলি সহায়তামূলক স্কিম আছে, তার মধ্যে হেল্প টু বাই হচ্ছে বহুল প্রচলিত একটি স্কিম। হেল্প টু বাই:ইকুইটি লোন স্কিম এর আওতায় গভর্নমেন্ট থেকে সর্বোচ্চ ২০% (লন্ডনে ৪০%) ডিপোজিট সুবিধা বা লোন এবং নিজস্ব ৫% ডিপোজিট নিয়ে বাকী ৭৫% ব্যাংক থেকে মর্গেজ নিয়ে বাড়ি কেনা সম্ভব। গভর্নমেন্ট এর এই ২০% ডিপোজিট সুবিধা বা লোন এর জন্য আপনাকে প্রথম ৫ বছর কোন ইন্টারেস্ট দিতে হবে না, তবে এই সময় আপনাকে প্রতি মাসে এই লোন এর একটা অংশ পরিশোধ করে যেতে হবে।পাঁচ বছর পর আপনাকে গভর্নমেন্ট লোন এর পাশাপাশি ইন্টারেস্টও দিয়ে যেতে হবে। বিদ্যমান হেল্প টু বাই:ইকুইটি লোন স্কিম শুরু হয়েছে পয়লা এপ্রিল ২০১৩ সালে এবং এর মেয়াদ শেষ হবে ৩১ ডিসেম্বর ২০২০। হেল্প টু বাই এর মাধ্যমে বাড়ি কেনার লিগ্যাল প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে হবে ৩১ মার্চ ২০২১ এর মধ্যে। তবে লকডাউন এর কারণে যারা হেল্প টু বাই:ইকুইটি লোন স্কিম এর জন্য আবেদন করতে পারেননি, তাদের কথা বিবেচনা করে ইংল্যান্ড সরকার ৩১ জুলাই ২০২০ তারিখে হেল্প টু বাই স্কিম এর আবেদনের মেয়াদ ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২১ পর্যন্ত বৃদ্ধি করেছে । নতুন মেয়াদ বৃদ্ধি মাধ্যমে নতুন বাড়ির নির্মাণ প্রক্রিয়া ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২১ এর মধ্যে অবশ্যই সম্পন্ন করতে হবে। এবং এই হেল্প টু বাই:ইকুইটি লোন স্কিম এর মাধ্যমে বাড়ি কেনার লিগ্যাল প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে হবে ৩১ মার্চ ২০২১ এর মধ্যে। যারা ৩০ জুন ২০২০ এর আগে হেল্প টু বাই এর মাধ্যমে রিজার্ভ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করেছেন, কিন্তু লকডাউন এর কারণে তাদের লোন এর প্রক্রিয়া অগ্রসর হয়নি। তাদের কথা বিবেচনা করে ইংল্যান্ড সরকার বাড়ি কেনার লিগ্যাল প্রক্রিয়া সম্পন্ন করার মেয়াদ বৃদ্ধি করেছে ৩১ মে ২০২১ পর্যন্ত। গভর্নমেন্ট থেকে নেওয়া এই লোন আপনি যে কোনো সময় পরিশোধ করতে পারবেন। এই লোন পরিশোধ চলাকালীন অবস্থায় আপনি যদি বাড়িটি বিক্রি করতে চান, তাহলে গভর্নমেন্টকে বিক্রয়মূল্যেও আনুপাতিক ২০% দাম পরিশোধ করতে হবে। আর যদি আপনি বাড়িটি বিক্রি না করেন তাহলে দীর্ঘ মেয়াদে ব্যাংকের মর্গেজ এর সাথে সাথে আপনার গভর্নমেন্ট লোনও পরিশোধ হয়ে যাবে। হেল্প টু বাই এর আওতায় বাড়ি কেনার শর্তাবলীঃ

  • বাড়িটি হতে হবে নিউ বিল্ড (নতুন নির্মিত বাড়ি)

  • এটি হতে হবে আপনার একমাত্র বাড়ি।

  • বাড়ির ক্রয়মূল্য সর্বোচ্চ ৬০০ হাজার পাউন্ড (ওয়েলসে ৩০০ হাজার)।

  • বাড়িটি কেনার পর তা ভাড়ায় দেওয়া যাবে না।

হেল্প টু বাই স্কিমটি তাদের জন্যই বিশেষ সহায়ক, যাদের মর্গেজ পাওয়ার মতো ভাল ইনকাম আছে কিন্তু ডিপোজিট কম। যেহেতু গভর্নমেন্ট এর লোনও আপনাকে নিয়মিত ইন্টারেস্ট সহ পরিশোধ করতে হবে, তাই এই ধরণের মর্গেজ পেতে আপনাকে বাড়ির দামের ৯৫% লোন ( ২০% গভর্নমেন্ট লোন এবং ৭৫% ব্যাংক মর্গেজ ) পাওয়ার মতো যথেষ্ট ইনকাম থাকতে হবে। লন্ডনে প্রপার্টির দাম যেহেতু অনেক বেশি, সে কারণে এজেন্ট লোন এখানে ৪০% পর্যন্ত পাওয়া যায়। অর্থাৎ যদি কারো ৫% ডিপোজিট থাকে, তাহলে ৪০% এজেন্ট লোন নিয়ে আপনাকে মাত্র প্রপার্টির দামের ৫৫% মর্গেজ নিতে হবে। এই স্কিমের আওতায় বাড়ি কিনতে চাইলে আপনাকে প্রথমেই দেখতে হবে, আপনি যে নিউ বিল্ড বাড়িটি চাচ্ছেন তা এই স্কিমের আওতায় রেজিস্টার্ড কিনা। এরজন্য ডেভেলপার বা হাউজিং এসোসিশন এর সাথে যোগাযোগ করুন। এই স্কিমটি পরিচালিত হয় সরকার নিযুক্ত ‘হেল্প টু বাই এজেন্ট’ দ্বারা। এই এজেন্টরা আপনার ডকুমেন্টস এসেসমেন্ট করে গভর্নমেন্ট এর ২০% লোন (লন্ডনে ৪০% লোন) এর ব্যবস্থা করে দেয়।আপনি চাইলে সরাসরি এজেন্টদের সাথে যোগাযোগ করতে পারেন অথবা আপনার মর্গেজ এডভাইজারের সহায়তা নিতে পারেন।

হেল্প টু বাই এবং মর্গেজ সংক্রান্ত যেকোনো ব্যাপারে আরো বিস্তারিত জানতে আমাদের সাথে নিচের টেলিফোন নাম্বারে অথবা ইমেইলে যোগাযোগ করতে পারেন। Email: info@benecofinance.co.uk Tel: 02080502478

7 views0 comments

Comentarios


bottom of page